Entertainment

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা [ক্যাশ ইন,ক্যাশ আউট চার্জ বিস্তারিত]

বাংলাদেশের সর্বপ্রথম মোবাইল ব্যাংকিং, ডাচ বাংলা ব্যাংক কর্তৃক বর্তমান আর্থিক লেনদেন মাধ্যম রকেট একাউন্ট নামে পরিচিত।   রকেট’ বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয়  ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান, ডাচ-বাংলা ব্যাংকের নিজস্ব মোবাইল ব্যাংকিং সেবার নাম। রকেট মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহার করে গ্রাহক মোবাইল ব্যাংকিং এর সকল ডিজিটাল সেবা গ্রহন করতে পারবে।
রকেট এর পূর্ব নাম ছিল ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং। ২০১১ সালে ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং চালু হলেও, তা ২০১৬ সালে নাম পরিবর্তন করে রকেট রাখা হয়। ডাচ বাংলা ব্যাংক বাংলাদেশে প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং এর ‍ডিজিটাল সেবা নিয়ে আসে। রকেট মোবাইল ব্যাংকিং একটি নিরাপদ আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা। রকেট তাদের লেনদেন প্রযুক্তি হিসেবে USSD কিংবা SMS+IVR ব্যবহার করে থাকে।

রকেট ব্যাবহারের সুবিধা

আপনি রকেট এজেন্ট বা কাস্টমার এর সাহায্যে রকেট একাউন্ট খুলতে পারবেন। তবে রকেট একাউন্ট খোলার জন্য আপনার কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে এজেন্ট বা কাস্টমার সার্ভিস এ যেতে হবে। এছাড়াও আপনি রকেট অ্যাপস এর মাধ্যমে নিজের ঘরে বসে বা এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের মাধ্যমে খুব সহজেই রকেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খুলতে পারেন। রকেট মোবাইল ব্যাংকিং খোলার জন্য আপনার কোন টাকা লাগবে না। অ্যাকাউন্ট খোলার সাথে সাথেই আপনার লেনদেন শুরু করতে পারবেন।

 

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা

রকেট প্রথম চালু হবার সময় শুধুমাত্র টাকা ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট এবং ট্রান্সফার সেবা প্রদান করলেও বর্তমানে রকেট তাদের মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমে আরও অনেক উন্নত সেবা যোগ করেছে।
* রকেট গ্রাহকদের জন্য যে সকল ডিজিটাল সেবার ব্যবস্থা রেখেছে তার মধ্যে অন্যতম হল:- বিল পেমেন্ট, অনলাইন পেমেন্ট, ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট, এটিএম ক্যাশ আউট, মানি ট্রান্সফার, ইত্যাদি। আজকের এই প্রতিবেদনে রকেট মোবাইল ব্যাংকিং কিংবা রকেট একাউন্ট এর সুবিধা সহ সকল বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।
তাই রকেট মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে  বিস্তারিত জানতে প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ পড়ার জন্য অনুরোধ করা হল।
* রকেট মোবাইল ব্যাংকিং তাদের গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিয়ে থাকে। যার কারণে রকেটের গ্রাহক সংখ্যা অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানির তুলনায় বেশি হারে বেড়ে চলছে।

* রকেট ব্যবহারে যেকোন সমস্যার সম্মুখীন হলে গ্রাহক যেকেন সময় রকেট কাস্টমার কেয়ার থেকে সেবা গ্রহন করতে পারে।
রকেট কাস্টমার কেয়ার দিনে ২৪ ঘন্টা এবং সপ্তাহে ৭ দিন সেবা দিয়ে থাকে।
রকেট একাউন্ট এর সুবিধা গুলো নিম্নে আলোচনা করা হল:-

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধাসমূহ:-

১. ক্যাশ ইন।
২. ক্যাশ আউট।
৩. মার্চেন্ট পেমেন্ট।
৪. ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট।
৫. বেতন প্রদান।
৬. রেমিটেন্ট ট্রান্সফার।
৭. মোবাইল ব্যালেন্স রিচার্জ।
৮. টাকা ট্রান্সফার।
৯. ভাতা প্রদান।
১০. এটিএম হতে টাকা উত্তোলন সহ ইত্যাদি।

ক্যাশ ইনঃ রকেটে গ্রাহকের নাম্বারে টাকা ক্যাশ ইন করার জন্য কোন সাহায্যের প্রয়োজন নেই। গ্রাহক যে পরিমাণ টাকা ক্যাশ ইন করতে চাইবে, এজেন্ট সেই পরিমাণ টাকায় ক্যাশ ইন করে দিবেন, এক্ষেত্রে কোন চার্জ এর প্রয়োজন হবে না। এক্ষেত্রে একজন গ্রাহক দিনে সর্বোচ্চ 30 হাজার টাকা নিজ নাম্বারে গ্রহণ করতে পারবেন।

ক্যাশ আউট:- রকেট এ ক্যাশ আউট চার্জ সবচেয়ে কম। রকেটে তিনভাবে ক্যাশ আউট করা যাবে। গ্রাহক যদি এজেন্টের মাধ্যমে ক্যাশ আউট করে, তবে প্রতি হাজারে ক্যাশ আউট চার্জ 18tk আর গ্রাহক যদি ডাচ বাংলা ব্যাংকে ক্যাশ আউট করে তবে চার্জ হবে প্রতি হাজারে 9tk আবার গ্রাহক যদি ফাস্ট ট্রাক এ বুথের মাধ্যমে ক্যাশ আউট করে তবে প্রতি হাজারে চার্জ হবে 9 টাকা।

ইউটিলিটি বিল প্রদান:- রকেট একাউন্টের মাধ্যমে বিভিন্ন বিদ্যুত বিল, পানির বিল, গ্যাসের বিল, ইন্টারনেটের বিল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফি প্রদান ও যেকোনো কেনাকাটার প্রেমেন্ট প্রদান করা যায়। এক্ষেত্রে খুব সহজেই এসকল পেমেন্ট গুলো প্রদান করা যায়।

বেতন প্রদান:- রকেট একাউন্টের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীর বেতন প্রদান করা হয়ে থাকে । এক্ষেত্রে খুব সহজেই ডাচ-বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে বেতন চলে যায় এবং গ্রাহক তার সুবিধাজনক উপায়ে যেকোন স্থান হতে বেতন ক্যাশ করে নিতে পারে । হিসাব রাখার ক্ষেত্রেও মাধ্যমটি অনেক সহজ।

রেমিটেন্স গ্রহণ:- রকেট একাউন্টের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ হতে প্রবাসীদের রেমিট্যান্স খুব সহজেই আনা যায়। এজন্য বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসীদের, সেই দেশের টাকা টান্সফার সেন্টারে কিছু কাগজপত্র জমা দিতে হয়। তাহলেই খুব সহজেই প্রবাসীরা রকেট একাউন্টের মাধ্যমে পরিবারের নিকট টাকা পাঠাতে পারে।

মোবাইল রিচার্জ:– রকেট একাউন্ট থেকে গ্রাহক তার নিজের নাম্বারে বা অন্য যেকোনো সিম নাম্বারে খুব সহজেই বিনা চার্জে মোবাইল রিচার্জ করতে পারেন। এক্ষেত্রে সর্বনিম্ন 10 টাকা থেকে রিসার্চ শুরু করতে পারেন।

টাকা টান্সফার/ সেন্ড মানি:- রকেট একাউন্ট থেকে যেকোনো রকেট নাম্বারে টাকা টান্সফার বা সেন্ড মানি একেবারেই ফ্রী। এক্ষেত্রে অ্যাপস থেকে হোক বা বাটন ফোন থেকে হোক সেন্ড মানি করতে কোন চার্জ লাগে না।

এটিএম বুথ /ফাস্ট ট্রাক:- রকেট মোবাইল ব্যাংকিং গ্রাহকগণের এটিএম বুথের মাধ্যমে সপ্তাহের সাত দিন 24 ঘন্টা ক্যাশ আউটের সুযোগ রয়েছে । তাই যেকোন সময় যেকোন স্থানের এটিএম বুথের মাধ্যমে  গ্রাহকগণ খুব সহজেই ক্যাশ আউট করতে পারেন।

রকেট মোবাইল ব্যাংকিং লিমিট  কত?

ক্যাশ-ইন লিমিট

  • দৈনিক ক্যাশ-ইন লিমিট:- সর্বোচ্চ ৫ বার, সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা
  • মাসিক ক্যাশ-ইন লিমিট:- সর্বোচ্চ ২৫ বার, সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকা

ক্যাশ-আউট লিমিট

  • দৈনিক ক্যাশ-আউট লিমিট:- সর্বোচ্চ ৫ বার, সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা
  • মাসিক ক্যাশ-আউট লিমিট:- সর্বোচ্চ ২০ বার, ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা

পিটুপি লিমিট

  • দৈনিক= ২৫ হাজার টাকা
  • মাসিক= ৭৫ হাজার টাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button